সংবাদ শিরোনাম

আরও সংবাদ

3 Comments

  1. 1

    Ahmed

    আপনাকে ধন্যবাদ আপনি আসল আইন তুলে ধরেছেন ।কিন্তু আসল ঘটনা হলো এই যে বর্তমানে যারা পুলিশে চাকরি করছেন তারা কেউই এই সম্পর্কে অবহিত নন ।তারা যথারীতি দুর্নীতির মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করে তার মানে হচ্ছে অযোগ্য ব্যক্তি দুর্নীতির মাধ্যমে ঘুষ বাণিজ্যের মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করছে তাদের একমাত্র লক্ষ্য হচ্ছে যে কোনো প্রকারেই হোক ধন-সম্পদের মালিক হতে হবে।

    Reply
  2. 2

    Braveheart

    Bangladesh Current Police Force lost all respect from every corner of our society!
    Bangladesh Police force is a rotten force! there is no comparison of Police force with any other country’s Police, unethical is the motto of some Police Personnel, although there are some honest officer still exist in the force. Feeling sorry for dedicated, honest officers even though their number is very minor.

    Reply
  3. 3

    The Patriot

    আমার প্রিয় দেশপ্রেমিক, তরুণ-যুবক সন্তান-সন্ততিদের জ্ঞ্যাতার্থেঃ ফ্যাসিবাদিরা বুঝে গেছে এদেশের মানুষকে কি ভাবে ঘরের মধ্যে ঢুকিয়ে রাখা যায়!! প্রথমে লাগামহীন ভাবে দেশের অর্থ-সম্পদ লুটপাট করেছে, তারপর সকল রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণের যায়গাগুলোতে দেশপ্রেমিক, যোগ্য লোকজনকে সরিয়ে দলিয় অশিক্ষিত, সম্পুর্ণ অযোগ্য, গুন্ডা বাহিনীর লোকজনকে বসিয়েছে। অস্বাভাবিক রকম আর্থিক সুবিধা দিয়ে ঐসকল লোকজনকে ধিরে ধিরে এমন অবস্থায় নিয়ে গেছে যেন আর ফিরে আসতে না পারে – ওরাই এখন মরনপণ হয়ে সকল অত্যাচার, অনাচার, খুন, গুম করে পুরা দেশের মানুষকে জিম্মি করে ফেলেছে। ওদের প্রাণপণ প্রচেষ্টা হছে মানুষকে ঘর থেকে বের হতে না দেয়া! এতে রাষ্ট্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠান জড়িত – কারণ ওখানে তো কোনো সুস্থ স্বাভাবিক মানুষ অবশিষ্ট নেই! হয় মেরে ফেলেছে নাহয় গুম করেছে নয়তো ভয় ভিতি দেখিয়ে ওএসডি করে রেখেছে। ওদের এই সফলতার পিছনের কারিগর হলো ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনী। ওরা সফল হয়েছে, ভিষণ ভাবে সফল হয়েছে এদেশের মানুষকে ভয়ে ভীত-সন্ত্রস্ত করে হাত-পা গুটিয়ে ঘরের ভিতরে ঢুকিয়ে, অঘোষিত ভাবে বন্দী করে রাখতে! এই অবস্থা থেকে দেশকে মুক্ত করতে হলে জিহাদ বা পুর্নাঙ্গ আরেকটি মুক্তি যুদ্ধ ছাড়া কোনো উপায় নেই! অতএব, অত্যন্ত সুচিন্তিত, সুপরিকল্পিত এবং সংঘবদ্ধভাবে ভাবে সামনে আগাতে হবে। দেশব্যাপি ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই!! সকল পেশা, শ্রেণির আপামর জনসাধারণকে সম্পৃক্ত করে, যার যা কিছু আছে লাঠিসোঁটা তাই নিয়ে একযোগে, একসাথে রাস্তায় নেমে বসে পড়তে হবে! হামলা হলে চুড়ান্ত ভাবে প্রতিহত করতে হবে। সকল থানা, ফাড়ি ঘেরাও করে নিষ্ক্রিয় করতে হবে – তাহলেই শুধু সম্ভব হবে এদেশকে দেশদ্রোহী এসব নরপশুদের হাত থেকে রক্ষা করা। তোমরা এটা করতে পারলে, ব্যারাক ভেঙে দেশপ্রেমিক সকল সেনা-পুলিশ সদস্যরা তোমাদের পাশে এসে দাড়াবে!! – এতে কোনো সন্দেহ নেই!! বিদেশে বসে এই গুঞ্জনটা আমরা জোড়ালো ভাবেই শুনতে পাচ্ছি! আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লা তোমাদের সহায় হোন এবং চুড়ান্ত বিজয় দান করুন – আমিন।

    Reply

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

© স্বত্ব আমার দেশ ২০০৮ – ২০২০