সংবাদ শিরোনামগুলো
>>ডাকাত বা লুটেরারা বদমাইশ কিন্তু তাদের সর্দারনী নিষ্পাপ!>>শেখ হাসিনাও সৌজন্য শেখাচ্ছেন!>>শেখ হাসিনাকে ক্ষমা চাইতে বললেন মির্জা ফখরুল>>৪ মানবাধিকার সংগঠনের যৌথ বিবৃতি: গুমের শিকার ব্যক্তিদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিন>>বিতর্কিত গণকমিশন ও ঘাদানিকের সাথে জড়িতদের আয়ের উৎস খুঁজতে দুদকে স্মারকলিপি>>লুটেরাদের ডলার লুটে টাকার মান কমল আরেক দফা>>আলেমদের বিরুদ্ধে তথাকথিত কমিশনের শ্বেতপত্র রাষ্ট্রদ্রোহিতা- সর্বদলীয় ওলামা ইউকে>>আওয়ামী লুটেরাদের ডলার লুট>>শেখ হাসিনার অধিনে কেউ ভোটে যাওয়ার চিন্তা করলে ভুল করবে-শামসুজ্জামান দুদু>>অবশেষে গডফাদার খ্যাত হাজী সেলিম কারাগারে: কতটা দ্রুততায় জামিন মঞ্জুর হয় সেটাই দেখার বিষয়

ব্যবসায়ী এই সিন্ডিকেটে সংসদের সদস্যরাই জড়িত- ভিপি নুর

, ,

নিজস্ব প্রতিনিধি

ভোট ডাকাতির মাধ্যমে গঠিত সংসদের সদস্যরাই ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের সাথে জড়িত বলে দাবী করেছেন গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর। তিনি বলেন, এই সংসদের ৬২% এমপি ব্যবসায়ী। তারা ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের সাথে জড়িত। গত ১৩ বছরে এই সরকার দেশকে মুমূর্ষু অবস্থায় নিয়ে গেছে। দেশ এখন আইসিইউতে রয়েছে।

ভোজ্যতেল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে শুক্রবার (১৩ই মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে নুরুল হক নূর একথা বলেন। বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ এই মানববন্ধনের আয়োজন করেছিল।

নুরুল হক নূর বলেন, মানুষ যেখানে খেতে পারে না, সেখানে উন্নয়ন প্রচার করার জন্য সরকার জেলায় জেলায় এলইডি বোর্ড স্থাপন করছে। এই সরকার এতো দিন ক্ষমতায় থাকায় পরও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে ভয় পায়। যাতে সঠিক খবর দিতে না পারে এজন্য গণমাধ্যমের টুটি চেপে ধরে আছে এ সরকার।

সরকারের এমপি মন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে নুর বলেন, সময় থাকতে ভালো হয়ে যান। সরকার যদি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম না কমায় তাহলে আমাদের পরবর্তী কর্মসূচি সচিবালয় ঘেরাও।

সমাবেশে গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, দ্রব্যমূল্যের দাম কমানো কঠিন কিছু নয়, আগে দুর্নীতি কমান তাহলেই হবে। মেগা প্রজেক্ট না করে আগে জনগণকে বাঁচান। অনেকেই বলছে পদ্মা সেতুর নাম শেখ হাসিনা সেতু করতে, আমার প্রশ্ন তারা কি শেখ হাসিনা কে ডুবাতে চায়?

ড.জাফরুল্লাহ বলেন, নির্দলীয় নিরেপক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। তা না হলে আপনাদের অবস্থাও শ্রীলঙ্কার মত হবে। প্রধানমন্ত্রী আপনি জনগণের কথা শুনুন, আমাদের নিয়ে বসেন।

গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু হানিফ বলেন, আমরা চাইনা বাংলাদেশের অর্থনীতির অবস্থা শ্রীলঙ্কার মতো হোক, তবে এই অবৈধ সরকারের এমপি মন্ত্রীদের উচিত শ্রীলঙ্কার এমপি মন্ত্রীদের মতো অবস্থা হওয়ার আগেই পদত্যাগ করুক।

বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মুনতাজুল ইসলাম এর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, গণঅধিকার পরিষদ যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, ফারুক হাসন, মাহফুজুর রহমান, সোহরাব হাসান, সাদ্দাম হোসেন, হানিফ খান সজিব যুগ্ম সদস্য সচিব আতাউল্লাহ, সাইফুল্লাহ হায়দার, মশিউর রহমান, যুব অধিকার পরিষদের সভাপতি মুনজুর মোর্শেদ মামুন, সাধারণ সম্পাদক নাদিম হাসান, শ্রমিক অধিকার পরিষদের সভাপতি আব্দুর রহমান, ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মোল্যা রহমতুল্লাহ প্রমুখ।

 

Leave a Reply