সংবাদ শিরোনাম

আরও সংবাদ

2 Comments

  1. 1

    The Patriot

    সময় হয়েছে তথ্য সংগ্রহ করার। পূর্নাঙ্গ তথ্য, পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং চারিত্রিক। পুলিশ নামের যেসব জানোয়ার ন্যায়ের পক্ষে সংগ্রামরত দেশপ্রেমিক সন্তান-সন্ততির উপরে হাত উঠায়, তেড়ে আসে বিভিন্ন লিগ-বাহিনী নিয়ে মানুষকে খুন জখম করতে, গুম করতে – এরা কারা? এরা কি সত্যিই এদেশের কোনো নারীর পেটে জন্ম নিয়েছে নাকি ভারত থেকে আমদানিকৃত? এদের পূর্নাঙ্গ তথ্য নিতে হবে, সংরক্ষণ করতে হবে এবং জনসম্মুখে প্রকাশ করতে হবে। এদের পিতামাতা কারা, এদের ছেলেমেয়ে কারা, কে কি করে সব প্রকাশ করতে হবে জনসম্মুখে। উলঙ্গ করতে হবে এদের সকল পরিচয়। সময় হলে জনসম্মুখে এদের বিচার করতে হবে দেশদ্রোহিতার জন্য।

    স্বাধীনতা যুদ্ধের উদ্দেশ্যটাই নিদারুণ চতুরতায় পাল্টে ফেলেছে হারামজাদার দল! এরা জাতিকে বুঝাতে চায় আমরা পাকিস্তান থেকে স্বাধীন হয়েছি ভারতভুক্ত বা ভারতের অঙ্গরাজ্য হওয়ার জন্য! দেশে আজ দুটি দল – স্বাধীন বাংলাদেশী দল এবং ভারতীয় দালাল দল। এছাড়া অন্য কোন বিভাজন নেই, থাকতে পারেনা। অতএব কে কোন দলের হয়ে কাজ করছে তা সুনির্দিষ্ট ভাবে চিহ্নিত করে তাৎক্ষণিক প্রতিকার বিধানের এখনই সময়! দেশদ্রোহিতার শাস্তি মৃত্যুদন্ড!!!!

    সরকার নামধারী অবৈধ ভারতীয় গুন্ডা বাহিনী জাতির উপরে চেপে বসে আছে এক যুগের উপরে – এদের এখনি নামিয়ে, ফাসিতে ঝুলিয়ে দেশকে অভিশাপ মুক্ত করতে হবে!! দেশের আপামর জনসাধারণ, মা-বোনকে অনুরোধ করছি, নুরু’রা আপনাদেরই সন্তান, রাস্তায় নেমে আসুন সবাই, সহযোগিতা করুন এদেরকে, লাগাতার অবস্থান করুন যতক্ষন না হারামজাদাদের চিহ্ন মুছে যায় দেশের মাটি থেকে। রক্ষা করুন দেশের স্বাধীনতা-সার্বোভৌমত্ব ভারতীয় গুন্ডা বাহিনীর হাত থেকে। May Almighty Allah SWT protect VP Nur and his fellow freedom fighters and help them achieve the second and final freedom of the Country soon – Ameen.

    দেশের সকল অনাচার, অত্যাচার, অবিচার, ব্যভিচার, খুন, ধর্ষণ, লুটপাট এবং কল্পনিয়-অকল্পনিয় সকল অপকর্মের একটিই মাত্র কারণ – আর তা হলো এক জানোয়ার মহিলার অবৈধ ক্ষমতা দখল !! এ অবৈধ পশুকে সমূলে ধ্বংস না করা পর্যন্ত এই দেশের মুক্তি নাই। অতএব একটিই মাত্র লক্ষ্য হওয়া উচিত এখন দেশের মানুষের – এই পশু নিধন এবং দেশকে মুক্ত-করণ।

    আওয়ামী লীগ মানেই নীতি-নৈতিকতা বিবর্জিত একটি পশুলীগ – দেখামাত্রই এদেরকে নিধন করাই এখন দেশের একমাত্র আইন হতে হবে – অন্যথায় দেশের মুক্তি সম্ভব নয়!!

    এই মুহুর্তের বাংলাদেশ – নুরু’তেই শুরু নুরু’তেই শেষ!! নুরুদের এই বাংলাদেশ – হবে এক নতুন দেশ, সুশাসনের সুগন্ধে গড়া, শান্তি আর আনন্দে ভরা – সুজলা-সুফলা বাংলাদেশ!! নুরুদের দেশ বাংলাদেশ!!!

    Reply
  2. 2

    মুজিবনগর

    বাংলাদেশ ঐতিহাসিক ভাবে একটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্টদের দেশ। ভারতে মুসলমানদের নিরাপত্তা থাকলে কোনদিন পূর্ব বা পশ্চীম পাকিস্তানের জন্ম হতো না ১৯৪৭ সালে। ভারতকে বৃটিশ শাসনমুক্ত করতে মুসলমানদের অবদান সব চাইতে বেশী। এসব নিয়ে উঁচু মহলে কোন তর্ক নাই, তারা সবাই সত্যটা জানে। আর এজন্যই যত ভয় তাদের।

    মুসলমান কিসের বলে বলিয়ান?, আল্লাহ্ তে ঈমান আনার বলে বলিয়ান সে। আর এজন্যই সে সর্বদা তার নিজেকে কোরবানী করতে প্রস্তুত আল্লার পথে, ঈমানের প্রয়োজনে, দেশের জন্য, জাতীর প্রয়োজনে, ধর্মের পথে।

    একটি মুসলমান রাষ্ট্রেই শুধুমাত্র একজন অমুসলমান নিরাপদ, এটা আমাদেরকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে সর্বপ্রথমে। ইহুদি আর খ্রিষ্টানরা সবসময় আমাদের বিরুদ্ধে কাজ করে এসেছে, ঐতিহাসিক ভাবে ওরা আমাদের বন্ধু হতে পারে না। ইসরাইলী গোয়েন্দারা ভারতে অত্যান্ত ততপর। সেখানকার হিন্দুদেরকে তাদের দোষর বানিয়ে ফেলেছে, ক্ষেপিয়ে তুলেছে হিন্দুদের আমাদের বিরুদ্ধে।

    ভারতে হিন্দুবাদীরা এখন বারুদের মত মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। ওরা ভিতু প্রকৃতির এবং আপাততঃ ওদের সংগবদ্ধ হতে দেখছি। কিন্তু ওরা ওদের নিজেদেরই শত্রু। একবার মুসলমানদের মধ্যে জাগরন দেখলে ওরা পালাবে সুরসুর করে। তাই আমাদেরকে দেখতে হবে এই ইস্কন, এরা কারা। ভারতীয় গোয়েন্দাবাহিনী ‘র’ সদস্যদের চিহ্নিত করুন, রামকৃষ্ন্ন মিশন নামের সংস্থাটিকে বিদায় করতে হবে, আর ভারতীয় হাইকমিশনের সবগুলো কনসুলেট অফিস বন্ধ করে দিতে হবে। ভারতীয় ভিসা অফিস শুধু ঢাকাতেই থাকলে চলবে। আর ভারতীয় হাইকমিশনকে পরিপূর্ন দেখাশুনার মধ্যে রাখুন। বাকী ভারতীয়রা, যারা এদেশে অবৈধ ভাবে কাজ করছে, তারা এমনিতেই পালিয়ে কুল পাবে না।

    Reply

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

© স্বত্ব আমার দেশ ২০০৮ – ২০২০